নেতৃত্ব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রতিবেদন

গত ১৯ জুলাই ২০২০ তারিখ বিকাল ৫ টায় উদ্দীপনের ঢাকা দক্ষিন অঞ্চলের শাখা ব্যবস্থাপকদের জন্য অনলাইনে নেতৃত্ব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ উপস্থাপনা করা হয়। প্রশিক্ষণটি উপস্থাপনা করেন আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মো. সালাহউদ্দিন মাহমুদ। প্রশিক্ষণটিতে ১০ জন শাখা ব্যবস্থাপক উপস্থিত ছিলেন। প্রশিক্ষণ পর্যবেক্ষণ করেন মো. গোলাম ফারুক -ব্যবস্থাপক, প্রশিক্ষণ, দিপংকর চৌধুরী- উপ ব্যবস্থাপক, প্রশিক্ষণ ও আয়েশা সিদ্দিকা- সহকারী ব্যবস্থাপক, প্রশিক্ষণ এছাড়াও প্রশিক্ষণটিতে উদ্দীপনের ঢাকা জোনের জোনাল ব্যবস্থাপক মো. জাহিদুল ইসলাম এবং এস এম শহীদুল্লাহ -সহকারী পরিচালক, ইনচার্য, প্রশিক্ষণ উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা প্রশিক্ষণের শিক্ষনীয় বিষয়বস্তুকে কর্মসূচির আলোকে সমন্বয় করে গুনগত ফল উৎপাদনে কাজ করার আহ্বান জানান।

আঞ্চলিক ব্যবস্থাপকের সাবলীল উপস্থাপনা এবং জোনাল ব্যবস্থাপকের আন্তরিক সহযোগিতায় প্রশিক্ষণটি প্রানবন্ত হয়ে উঠে।

সূচনাপর্বে আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রশিক্ষণের উপস্থাপনা শুরু করেন। তিনি প্রশিক্ষণের সভাপতি জোনাল ব্যবস্থাপককে প্রশিক্ষণ উদ্বোধন ঘোষনা ও শুভেচ্ছা বক্তব্য দিতে অনুরোধ জানান। জোনাল ব্যবস্থাপক তাঁর বক্তব্যে বলেন, এই মুহুর্তে সর্বপ্রথম স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা প্রয়োজন। তিনি সততা, নিয়মানুবর্তিতা, দায়বদ্ধতা, টিমে কাজ করার উপর জোর দেন। তিনি সকলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রশিক্ষণ উদ্বোধন ঘোষনা করেন। তিনি বলেন, এটি একটি অংগ্রহণমূলক প্রশিক্ষণ। তাই সবাইকে নিজের মতামত প্রকাশের আহ্বান জানান এবং কোন কিছু বুঝতে অসুবিধা হলে প্রশ্ন করে জেনে নিতে বলেন। এছাড়া তিনি আঞ্চলিক ব্যবস্থাপকে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে প্রশিক্ষণ পরিচালনার উপর গুরুত্ব দিতে আহ্বান জানান।

শাখা ব্যবস্থাপকদের জন্য আয়োজিত “নেতৃত্ব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ” টির আলোচনার শুরুতে কোর্সের সাধারণ ও সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করা হয়।

সহায়ক বলেন, কোর্সের সাধারণ উদ্দেশ্য হচ্ছে – এই কোর্স শেষে অংশগ্রহণকারীগণ নেতৃত্ব উন্নয়ন ও সফল মানুষের সাতটি অভ্যাস বিষয়ক জ্ঞান, দক্ষতা ও দৃষ্টিভঙ্গির সাথে মাঠের কাজের বাস্তবতার সমন্বয় সাধন করতে সক্ষম হবেন। তিনি আরও উল্লেখ করে বলেন, কোর্সের সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্য হচ্ছে – নেতা ও নেতৃত্ব সম্পর্কে বলতে পারবেন, নেতার প্রকারভেদ সম্পর্কে বলতে ও ব্যাখ্যা করতে পারবেন, নেতার গুণাবলী চিহ্নিত করতে পারবেন, নেতার কাজ সমূহ বলতে পারবেন, বিখ্যাত পন্ডিত স্টিফেন কোভের অালোকে একজন সফল মানুষের ৭টি অভ্যাস সম্পর্কে বলতে ও ব্যাখ্যা করতে পারবেন, একজন সফল মানুষের ৭টি অভ্যাসের অালোকে সংস্থার একজন কার্যকরী নেতার কাজ সমূহ চিহ্নিত ও ব্যাখ্যা করতে পারবেন।

এরপর সহায়ক নেতৃত্ব উন্নয়ন প্রশিক্ষণের বিষয়বস্তু Power Point Presentation এর মাধ্যমে ব্যাখ্যা করেন। উপস্থাপনায় নেতৃত্ব, নেতা, LEADER শব্দের প্রতিটি অক্ষরের ব্যাখ্যা, নেতার প্রকারভেদ, নেতার গুণাবলী, নেতার কাজ এবং স্টিফেন কোভে এর 7 Habits of Highly Effective People আলোচনা করা হয়। 7 Habits হচ্ছে – Sharpen the saw, Be proactive, Begin with an end in mind, Put first things first, Think win-win, Seek first to understand, then to be understood, Synergize । এরপর সহায়ক স্টিফেন কোভে এর 7 Habits এর আলোকে কিভাবে সংস্থার উন্নয়নে কার্যকরী নেতৃত্ব দেওয়া যায় তা ব্যাখ্যা করেন। এছাড়াও তিনি একজন আদর্শ নেতার ভূমিকা স্বরূপ TGR অর্থাৎ Ten Golden Rules ব্যাখ্যা করে বুঝিয়ে দেন। যা হচ্ছে- আমি’ কথাটি উপেক্ষা করা, ‘অমরা’ শব্দটি ব্যবহার করা, ‘অহংবোধ’ বশে আনা, ‘ভালোবাসা’র মূল্য দেওয়া, ‘হাসি’ কে ধরে রাখা, ‘গুজব’ কে উপেক্ষা করা, ‘সাফল্য’ অর্জন করা, ‘হিংসা’ থেকে দূরে থাকা, ‘জ্ঞান’ অর্জন করা এবং ‘বন্ধুত্ব’ বজায় রাখা।

প্রশিক্ষণের প্রতিটি বিষয় উপস্থাপনার পূর্বে সহায়ক অংশগ্রহনকারীর ধাবনা এবং বিষয় ভিত্তিক আলোচনা শেষে অংশগ্রহনকারী কতটুকু অনুধাবন করলেন সেটাও যাচাই করেন। সহায়কের পাশাপাশি মো. গোলাম ফারুক – ব্যবস্থাপক, প্রশিক্ষণের প্রতিটি বিষয় অংশগ্রহণকরীদের জন্য সহজ ভাষায় ব্যাখ্যা করেন। তিনি অংশগ্রহণকরীদের উদ্দ্যেশে বলেন, আমরা সবাই যার যার অবস্থান থেকে এক একজন নেতা। একজন আদর্শ নেতা সামাজিক, পারিবারিক ও সংগঠন সহ সকল পর্যায়েই সফল ও সুখী মানুষ।

এস এম শহীদুল্লাহ সহকারী পরিচালক, ইনচার্য বলেন, বতর্মানে করোনা পরিস্থিতিতে সর্বত্র অনলাইন ট্রেনিং অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও অনলাইনে পরিচালনা করা হচ্ছে। তিনি প্রত্যাশা করেন, অংশগ্রহণকরীগণ স্টিফেন কোভের উল্লেখিত সাতটি অভ্যাস অাত্মস্থ করে নিজের ও কর্মীর আত্ম-বিশ্বাস বৃদ্ধি এবং আত্ম-উন্নয়ন ঘটাবেন। তিনি আরও বলেন, একজন নেতা তার উল্লেখযোগ্য কাজ ও গুনাবলীর দ্বারা অন্যকে প্রভাবিত ও অনুপ্রাণিত করতে সক্ষম হবেন। এছাড়া নিজেকে সংস্থায় একজন কার্যকরী নেতার ভূমিকায় দেখতে Ten Golden Rules কে ব্যক্তি ও পেশাগত জীবনে বাস্তবায়নের আহ্বান জানান।

এরপর অংশগ্রহণকারীদের অঙ্গিকার করানো হয়। তারা করোনা মহামারীর এই দুর্যোগকালীন সময়ে নিম্ন লিখিত প্রতিশ্রুতি গুলো মেনে চলবেঃ
• স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবো
• OTR ১০০℅ নিশ্চিত করবো
• PAR সর্বনিম্ন পর্যায়ে (২℅) নিয়ে আসবো
• ভালো ঋণ প্রদান বৃদ্ধি করবো
• সকল অনিয়ম দূর করবো
• দলীয় সংহতি বজায় রেখে কাজ কররো
অংশগ্রহণকারীদের উদ্দেশ্যে প্রশিক্ষণ পর্যবেক্ষক বলেন, উর্ধ্বতন তত্ত্বাবধায়কগণ অংগ্রহণকারীদের দেয়া প্রতিশ্রুতি সমূহ ফলোআপ করবেন এবং বাস্তবায়ন নিশ্চিত করবেন।

এরপর প্রশিক্ষণ মূল্যায়ন করা হয়। অংশগ্রহণকারীদের উদ্দেশ্যে প্রশিক্ষণ পর্যবেক্ষক আরো বলেন, এই প্রশিক্ষণটি এবার নিজ শাখায় প্রতিটি কর্মীকে অংশগ্রহণকারীগণ দিবেন। এই প্রক্রিয়ায় সকল কর্মী এই “নেতৃত্ব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ” টি গ্রহণ করবে।

এরপর জোনাল ব্যবস্থাপক প্রশিক্ষণ বিভাগের স্বল্পকালীন বিভিন্ন প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন। তিনি প্রশিক্ষণ বিভাগের বিভিন্ন দিকনির্দেশনা ও ভূমিকা এবং প্রশিক্ষণ বিভাগের কর্মকর্তাদের সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জানান।

এরপর আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক বলেন, প্রশিক্ষণ বিভাগের এই “নেতৃত্ব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ” শাখার প্রতিটি কর্মীর আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি ও কর্মসূচিকে সমৃদ্ধ করবে। অতপর তিনি সকল অংশগ্রহণকারীকে ধন্যবাদ জানান এবং সভাপতি মহোদয়কে প্রশিক্ষণের সমাপ্তি ঘোষণার জন্য অনুরোধ করেন।

আর কোন আলোচনা না থাকায় উদ্দীপন ঢাকা জোনের জোনাল ব্যবস্থাপক “নেতৃত্ব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ” কোর্সের উপস্থাপনা সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

উদ্দীপন প্রশিক্ষণ বিভাগ।